ঝাঁকপাল্লা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
ঝাঁকপাল্লা
Common Cruiser
Cruiser Vindula erota WLB IMG 9284 34.jpg
ডানা বন্ধ অবস্থায়
Open wing position of Vindula erota Fabricius, 1793 – Cruiser (Male).jpg
ডানা খোলা অবস্থায়
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: Arthropoda
শ্রেণী: Insecta
বর্গ: Lepidoptera
পরিবার: Nymphalidae
গণ: Vindula
প্রজাতি: V. erota
দ্বিপদী নাম
Vindula erota
(Fabricius, 1793)
প্রতিশব্দ

Cynthia erota

ঝাঁকপাল্লা[১](বৈজ্ঞানিক নাম: Vindula erota (Fabricius)) যার মূল শরীর উজ্জ্বল কমলা হলুদ বর্ণের এবং ডানা দুটি কমলাটে হলুদ বর্ণ দেখা যায়। এরা নিমফ্যালিডি পরিবার এবং হেলিকোনিনি উপগোত্রের সদস্য।

আকার[সম্পাদনা]

ঝাঁকপাল্লার প্রসারিত অবস্থায় ডানার আকার ৯০-১১০মিলিমিটার দৈর্ঘ্যের হয়। [২]

উপপ্রজাতি[সম্পাদনা]

ঝাঁকপাল্লার উপপ্রজাতিসমূহ হল -[৩]

  • Vindula erota erota
  • Vindula erota asela Moore
  • Vindula erota banta Eliot, 1956
  • Vindula erota battaka Moore
  • Vindula erota boetonensis Jurriaanse et Lindemann
  • Vindula erota chersonesia Pendlebury, 1939
  • Vindula erota gedeana Fruhstorfer
  • Vindula erota montana Fruhstorfer
  • Vindula erota orahilia Kheil
  • Vindula erota pallida Staudinger
  • Vindula erota ricussa Fruhstorfer
  • Vindula erota saloma de Nicéville
  • Vindula erota sulaensis Joicey et Talbot

ভারতে প্রাপ্ত উপপ্রজাতি[সম্পাদনা]

ভারতে প্রাপ্ত ঝাঁকপাল্লার উপপ্রজাতিসমূহ হল-

  • Vindula erota saloma de Nicéville, 1886 – Sahyadri Cruiser
  • Vindula erota erota Fabricius, 1793 – Thai Cruiser
  • Vindula erota pallida Staudinger, 1885 – Andaman Cruiser

বর্ণনা[সম্পাদনা]

আর্দ্র ঋতু রূপ[সম্পাদনা]

পুরুষ[সম্পাদনা]

পুরুষ ঝাঁকপাল্লা ডানার উপরিভাগ উজ্জ্বল কমলা হলুদ বর্ণ বিশিষ্ট। সামনের ডানার গোড়ার দিকে জলপাই রঙ এবং বাদামী রঙ এর সংমিশ্রন, এবং ডানা সুস্পষ্ট কালো দাগ দ্বারা চিহ্নিত। তিনটে ছোটো সর্পিল তেরছা দাগ রয়েছে শিরা পরিবেষ্টিত মধ্যবর্তী স্থান বরাবর।ডানার অভ্যন্তরীন ডিক্সে একটি সরলরৈখিক ভাঙাভাঙা তেরচা কালো দাগ দেখা যায় এবং ডানার বাইরের দিকের ডিস্কে একটি ভাঙাভাঙা তীর্যক কালো দাগ। তীর্যক দাগ এর ভিতরদিকে বাঁকানো সারিবদ্ধ বুটি দেখা যায়, ডানার বহির্ভাগের ডিস্কে। সমান দূরত্বে অবস্থিত এই বুটি দাগগুলির মধ্যে পঞ্চম এবং ষষ্ঠ বুটিগুলি সর্ববৃহত। ডানার উপপ্রান্তিক অংশে ভিতরে এবং বাইরে দুটি পাশাপাশি সুস্পষ্ট আঁকাবাঁকা সরু কালো বন্ধনী রয়েছে।

পিছনের ডানাতেও সামনের ডানার সাথে সামঞ্জস্য রেখে ডানার আভ্যন্তরীণ অংশে তীর্যক কালো রৈখিক দাগ এবং উপপ্রান্তিক আঁকাবাঁকা সরু সুস্পষ্ট বন্দনী দেখা যায়। দুই ডানার বহির্ভাগে সারিবদ্ধ বুটিগুলির ৪টে সামনের ডানায় এবং পঞ্চম এবং ষষ্ঠ বড় বুটিগুলি পিছনের ডানায় অবস্থিত। পিছনের ডানার আভ্যন্তরীন এবং বহির্ভাগ এর ডিস্ক এর মধ্যবর্তী সরলরৈখিক তীর্যক দাগটি উপরের ডানার ওই একই অংশের দাগটির সাথে সামঞ্জস্যযুক্ত, তবে পিছনের ডানার দাগটি ধীরে ধীরে আবছা এবং অস্পষ্ট হয়ে যায়।[৪]

দুটি ডিসকাল দাগ এর মধ্যবর্তী অংশ আভ্যন্তরীণ ডিস্কের কমলা হলুদ রঙ অপেক্ষা অনেক হালকা হলুদ। এছাড়া নিচের ডানার নিম্নভাবে একটি ঘন গভীর কমলা হলুদ রঙের ইষদ আবছা বন্ধনী দেখা যায় এবং দুই ডানার রং বিভাজিকার কৌনিক অবস্থানে একদম কোনে একটি জলপাই ফুলের (lilac) ন্যায় বর্নবিশিষ্ট বুটি রয়েছে।[৪]

ডানার নিম্নপৃষ্ঠ একই রকম ভাবে বিন্যাস্ত, ডানার গোড়ার দিকের অংশ অর্থাৎ আভ্যন্তরীন ডিস্ক একটি কালো দাগ দিয়ে ঘেরা এবং সিন্দুর লাল রঙে আবৃত। ডানার বর্হিভাগের আঁকাবাঁকা তীর্যক অস্পষ্ট দাগ একই রকম অর্থাৎ ডানার উপরিভাগের মতো। এছাড়াও সামনের ডানাদুটির চূড়ার কাছাকাছি দুটি ক্রীমবর্ন সাদা এবং হালকা গোলাপী রঙ এর মিশ্র রঙের দুটি ছোপ থাকে এবং উপপ্রান্তীয় রেখাদুটির মধ্যবর্তী অংশ বেগুনী লাল ময়ুরপঙ্খী রঙে আবৃত। উপপ্রান্তীয় সরলরৈখিক দাগ দুটির মধ্যে ভিতরের দাগ ঋজু অর্থাৎ আঁকাবাঁকা নয়।[৪]

সামনের ডানার অ্যপেক্স অথবা শীর্ষ অবস্থানের একটু নিচে ক্রীম-সাদা রঙের প্রেপিকাল স্পট অথবা ছোপ রয়েছে এবং ডানার উপ-প্রান্তিক অংশে ইষদ গোলাপী রঙের পোস্ট ডিসক্যাল সরু ব্যান্ড ( দুটি সাবটার্মিনাল অথবা উপপ্রান্তিক আঁকাবাঁকা দাগের মধ্যবর্তী অংশ) পরিলক্ষিত হয়। পোস্ট বেসাল এবং ডিসকাল অংশ সীমান্তকারী কালো পুরু থেকে ক্রমশ সরু হয়ে নিচের ডানায় নেমে যাওয়া দাগটি ঋজু, আঁকাবাঁকা নয়। এই আভ্যন্তরীন সোজা দাগটি এবং ভিতরের উপপ্রান্তিক দাগটির মধ্যবর্তী ইন্টারস্পেসগুলি অথবা দুটি শিরার মধ্যবর্তী অংশগুলির রঙ ডানার বেসাল এবং পোস্টবেসাল অংশের রঙ অপেক্ষা হালকা এবং উজ্জ্বল। পিছনের ডানার বেস এর দিকে কিছু অতিরিক্ত তীর্যক রেখাবিন্যাস এবং সরু লুপ এর মতো কালো দাগ পরিলক্ষিত হয়। পিছনের ডানায়, চোখে পড়ার মত সোজা এবং তীর্যক উপপ্রান্তিক রেখা দুটির মধ্যবর্তী পোস্টডিসকাল ব্যান্ড রয়েছে এবং এই ব্যান্ড থেকে ভিতরের দিকে ২ এবং ৩ নং শিরার মধ্যবর্তী স্থানে ফ্যাকাশে ইষদ বেগুনী (পার্পেল) রঙের বিন্যাস নজরে আসে যা টারমেন অর্থাৎ পার্শব প্রান্ত পর্যন্ত বিস্তৃত নয়। অ্যান্টেনা কালো এবং রাস্ট বর্নের। ঝাঁকপাল্লার মাথা, বক্ষ এবং উদর উপরের দিকে জলপাই সবুজ ও কমলা রঙের মিশ্রন এবং নিচের দিকে কালচে কমলা-হলুদ বর্নের হয়।

স্ত্রী[সম্পাদনা]

স্ত্রী ঝাঁকপাল্লা, বক্সা ব্যঘ্র প্রকল্প,পশ্চিমবংগ,ভারত

স্ত্রী ঝাঁকপাল্লার ডানার উপরিপৃষ্ঠের বেস হালকা বাদামী রঙের। সামনের এবং পিছনের উভয় ডানার বেসাল এবং পোস্ট-বেসাল অংশ জুড়ে ত্রিভুজাকৃতি রঙের প্যাচ (জলপাই সবুজ) সাদা ডিসকাল অংশকে আলাদা করেছে। উপরের ডানার সেল এর শীর্ষ থেকে নীচের ডানার ২নং শিরা পর্যন্ত এই বেসাল অংশ ইষদ জলপাই সবুজ, নীচের ডানার প্রান্তিক (টার্মিনাল) সীমারেখা থেকে ভিতরের দিকে চওড়া অংশজুড়ে হালকা লালচে অচ্রাসিয়াস রঙের বিন্যাস রয়েছে। উপর এবং নীচ উভয় ডানার বেসাল এবং পোস্টবেসাল অংশের ইষদ জলপাই সবুজ বর্নবিন্যাসকে ঘিরে উপর ডানার কোস্টা থেকে নীচের ডানার মধ্যভাগ পর্যন্ত বিস্তৃত, তলার দিকে ক্রমশঃ সরু হয়ে যাওয়া সাদা ডিসকাল ব্যান্ড দেখা যায়। উপরের ডানার পোস্ট ডিসকাল অংশের রঙ হালকা বাদামী। সামনের এবং উপরের ডানাদুটিতে কালচে শিরাগুলির আঁকিবুকি এবং বিস্তার বেশ আকর্ষনীয়। সামনের ডানার সাদা ডিসকাল এবং হালকা বাদামী পোস্ট ডিসকাল অংশের বিভাজনের কাছে। ডানার বেসাল অংশ অভিমুখী কৌনিক চিহ্নের মত ধূসর বাদামী কালচে দাগের শ্রেনী অথবা সিরিজ চোখে পড়ে, যাদের নিচে বিভিন্ন মাপের গোলাকৃতি এবং প্রায় গোলাকৃতি সুস্পষ্ট এবং আবছা কালচে ছোপ এবং বুটি দেখা যায়।

সামনের ডানায় কোস্টাল অঞ্চলের ঠিক নিচে অবস্থিত সেল এ তিনটি ছোট তীর্যক সর্পিল দাগ এবং ডিস্কোসেলুলার (সেল এবং ডিসকাল অংশের সংযোগস্থল) অংশ দুটি আঁকাবাঁকা দাগ পরিবেষ্টিত একটি ছোট এবং সরু ব্যান্ড রয়েছে। সেল এর ঠিক ডানপাশে ১নং থেকে ৪নং শিরার মধ্যবর্তী জলপাই সবুজ পোস্ট-বেসাল এবং সাদা ডিসকাল অংশের সীমান্তে একটি পুরু ছোট আঁকাবাঁকা দাগ রয়েছে যার থেকে ১,২,৩ এবং ৪নং শিরার সূত্রপাত। উপর এবং নীচ দুই ডানাতেই হালকা বাদামী পোস্ট-ডিসকাল সরু ব্যান্ড এবং সর্পিল সাবটার্মিনাল (উপপ্রান্তিক) দাগ পরিলক্ষিত হয়। উপরের ডানার অ্যপেক্স অথবা শীর্ষ অবস্থানের একটু নিচে একটি চোখে পড়ার মত একটি সাদা প্রেপিকাল ছোপ নজরে পড়ে।

উপরের ডানার অ্যাপেক্স অথবা শীর্ষের একটু নিচে সপ্তম ইন্টারস্পেসে একটি চোখে পড়ার মত আকর্ষনীয় প্রোপিকাল স্পট অথবা ছোপ থাকে।

পিছনের ডানার উপরিপৃষ্ঠে, সাদা ডিসকাল ব্যান্ডের বহিঃপ্রান্তরেখা বরাবর একটি ধূসর-বাদামী আঁকাবাঁকা দাগ রয়েছে যা ডিসকাল এবং পোষ্টডিসকাল অংশের সীমানা চিহ্নিত করে। পোস্টডিসকাল অংশে চওড়া এবং তীর্ষক ভাবে অবস্থিত অস্পষ্ট হালকা ধূসর বাদামী বর্নচ্ছায় অঞ্চল রয়েছে যার মধ্যে দ্বিতীয় এবং পঞ্চম ইন্টারস্পেসে দুটি সাদাকেন্দ্রযুক্ত ধূসর-বাদামী এবং কমলা-হলুদ রঙা চোখ এর মত দেখতে অসিলাস রিং সুস্পষ্টভাবে প্রতীয়মান। ডানার পাশের প্রান্ত (টার্মেন) এবং নিম্নপ্রান্ত (ডরসাম) বরাবর একটি সাবটার্মিনাল অথবা উপপ্রান্তিক বন্ধনী দেখা যায়। বাইরের উপপ্রান্তিক (সাবটার্মিনাল) রেখাটি আঁকাবাঁকা এবং কালচে বাদামী রঙের। অ্যাবডোমেন (উদরদেশ) এর উপরের অংশটি কমলা হলুদ রঙের।

স্ত্রী ঝাঁকপাল্লার ডানার নিম্নপৃষ্ঠ পুরুষ ঝাঁকপাল্লার ডানার নিম্নভাগের অতি সাদৃশ্য আছে, যদিও কয়েকটি পার্থক্য লক্ষ্য করা যায়।

গ্রাউন্ড অথবা বেস রঙ হলদে-কমলা এবং সামনের ও পিছনের উভয় ডানারই নিম্নপৃষ্ঠের বেসাল অংশ কালচে কমলা-হলুদ বর্নের। ডানার প্রায় সমস্ত দাগগুলি পুরুষ ঝাঁকপাল্লার ডানার মত কিন্তু দাগগুলি পিঙ্গল বর্নের। পিছনের ডানার নিম্নভাগে অসিলাস রিং আকারে বড় হয়।[৪]

অ্যান্টেনা অথবা শুঙ্গ কালচে বাদামী এবং শীর্ষভাগে হালকা কমলা হলুদ রঙের আভা আছে। পাল্পি অথবা মাথার সামনে এবং দুচোখের খাঁজের অংশটির উপরিপৃষ্ঠে কমলা হলুদ এবং নিম্নভাগে ফ্যাকাশে কমলা-হলুদ রঙ দেখা যায়। এদের মাথা, থোরাক্স (বক্ষদেশ) এবং উদরদেশের উপরিপৃষ্ঠ জলপাই সবুজ রঙ, নিম্নভাগ ফ্যাকাশে কমলা হলুদ রঙের হয়।

শুষ্ক ঋতুরূপ

ঝাঁকপাল্লা প্রজাপতির আর্দ্র-ঋতুরূপ অপেক্ষা শুষ্ক ঋতুরূপের আকার ছোট হয়। নিয়মানুসারে পিছনের ডানার ৪নং শিরার শীর্ষে অবস্থিত লেজ ছোট হয়।

পুরুষ[সম্পাদনা]

পুরুষদের ডানার উপরি এবং নিম্নপৃষ্ঠ আর্দ্রঋতু রূপের অনুরূপ, কিন্তু গ্রাউন্ড অথবা বেস কালার অনেক হালকা। ডানার নিম্নপৃষ্ঠ পুরোপুরি ফ্যাকাশে সিন্দুর রঙ্গে আবৃত। দাগগুলি অপেক্ষাকৃত ছোট, মাঝেমধ্যেই কম বেশী মাত্রায় বিলুপ্ত এবং সর্বদাই অপেক্ষাকৃত অস্পষ্টভাবে প্রতীয়মান। ডানার উপরিতলের দাগগুলি ছাইরঙা কালচে বাদামী, নিম্নতলের প্রান্তরৈখিক অঞ্চল হালকা পার্পেল অথবা লালচে বেগুনি রঙে আবৃত।

[৪]

স্ত্রী[সম্পাদনা]

স্ত্রী ঝাঁকপাল্লার শুষ্ক ঋতুরূপ, আর্দ্র-ঋতুরূপ থেকে উল্লেখযোগ্যভাবে ভিন্ন । উভয় ডানার  উপরিপৃষ্ঠ খুব চওড়া ফ্যাকাশে অথবা হালকা কমলা-হলুদ এবং সাদায় মেশানো ডিসকাল বন্ধনী রয়েছে যা সামনের ডানার কোস্টা থেকে পিছনের ডানার টর্নাস এর ঠিক উপরে ডর্সাল মার্জিন অথবা নিম্নপ্রান্তরেখা পর্যন্ত বিস্তৃত। সামনের ডানায়, আর্দ্র-ঋতুরূপের মতো, ডিসকাল বন্ধনীর ভিতরের ভাগে বেসাল অঞ্চল জলপাই সবুজ রঙের কিন্তু সেলের মধ্য দিয়ে যে তিনটি তীর্যক রেখা গেছে তাদের বাইরের দিকের দুটির মধ্যবর্তী আঁকাবাঁকা রেখাটি এবং ডিসকাল বন্ধনীতে আড়াআড়ি ভাবে বিন্যস্ত ছোপগুলির সারি ভীষন অস্পষ্ট।[৪]

পিছনের ডানার উপরিপৃষ্ঠে বেসাল অঞ্চল কমলা হলুদ; নিম্নপৃষ্ঠের কমলা হলুদ রং সচ্ছ ডানার মধ্য দিয়ে উপরিপৃষ্ঠে প্রতীয়মান হয়। সেল এর বেস এ খুব হালকা জলপাই সবুজ রঙের ছোঁয়া রয়েছে। ডিসকাল বন্ধনীর বাইরের ডানার পাশের প্রান্তীয় অংশ উজ্জ্বল কমলা-হলুদ। পোস্টডিসকাল অংশে অসিলি ( চোখের মত রিংগুলি ) এবং ভিতরের ও বাইরের উপপ্রান্তিক কালো রেখাগুলি আর্দ্র-ঋতুরূপের সাদৃশ্য।[৪][৫]

বিস্তার[সম্পাদনা]

আচরণ[সম্পাদনা]

প্রাপ্ত বয়স্ক প্রজাপতিরা খুব দ্রুত বনের বিশাল অংশ জুড়ে ঘুরে বেড়ায়। এদের উভয় লিঙ্গের আলাদা দলে ঘুরতে দেখা যায়। প্রায়শই পুরুষদের গাছের উপরে বসে পচা মাংস, পাখীদের বিষ্ঠা খেতে দেখা যায়।[৬] অনেক সময় মাংসাশী প্রাণীদের বিষ্ঠা অথবা ছোট ছোট ঝোপঝাড়ে Chromolaena odorata[৭] এবং Lantana camara এই সব গাছের ফুল এর মধু খেতে পছন্দ করে। ছোট ঝর্না অথবা নদীতে এদের পছন্দের খাবার হল পচা মাছ এবং কাঁকড়ার টুকরো, যা অনেক সময় পেঁচারা রাত্রে অর্ধপাচিত খাদ্য হিসাবে বমি করে। শুষ্ক আবহাওয়াতে এদের কাদাযুক্ত ভিজে জায়গায় জল পান করে।[৬]

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

ডিম[সম্পাদনা]

এই প্রজাতির স্ত্রী প্রজাপতিরা পাতার নীচের দিকে একসাথে ৩-৫টি ডিম পাড়তে সক্ষম। ডিমগুলি প্রথম অবস্থায় হালকা কমলা বর্ণের হয়, পরবর্তীকালে তা ধুসর বর্ণে পরিণত হয়।

শূককীট[সম্পাদনা]

ঝাঁকপাল্লা প্রজাপতির শূককীট ফ্যাকাশে হলুদ রঙের এবং দেহের নিম্নভাগের বর্ণ লালচে বাদামী। দেহের সেগমেন্ট অথবা খন্ডগুলি বাদামী ডোরাকাটা, সেগমেন্ট মধ্যবর্তী স্পিরাকেলসগুলি কালো। এদের মাথা দাড়াযুক্ত। পৃষ্ঠদেশে (ড্ররসাল) এবং পাশের দিকার উপরি ভাগে (আপার ল্যাটেরাল) সারিবদ্ধভাবে কাঁটার মত অংশ থাকে যেজুলি দেহত্বকের উপরস্থ লালচে গোলাকার স্ফীত অংশ থেকে নির্গত হয়।[৬]

আহার্য উদ্ভিদ[সম্পাদনা]

এই শূককীট Adenia hondala,Adenia palmata[৮] ,Inula royleana, Launea nudicaulis[৯] গাছের পাতার রসালো অংশ আহার করে।[১][১০]

মূককীট[সম্পাদনা]

ঝাঁকপাল্লার মূককীট হালকা লালচে বাদামী রঙের। এদের মাথা পুরু অথবা মোটা এবং মাথার দু'পাশে দুটি ছোটো কালো বিন্দু দেখা যায়। থোরাক্স অথবা দেহের মধ্যভাগ শঙ্কু আকৃতির। অ্যাবডোমেন (পেট) এর সন্মুখ অথবা অগ্রবর্তী খন্ডগুলি থেকে চওড়া, পুরু এবং চ্যাপ্টা ডানার মত অংশ বাইরের দিকে দুপাশে বিস্তৃত হয়েছে, যাদের শেষভাগে অগ্র এবং পশ্চাৎমুখীদুটি লম্বা অংশ রয়েছে। অ্যাবডোমেন এর মধ্যবর্তী খন্ডগুলিতে, পৃষ্ঠদেশে একটি ছোট স্ফীত অংশ দেখা যায়। দুটি অ্যানাল সেগমেন্টে (পশ্চাৎ খন্ডে) পৃষ্ঠদেশে দুটি লম্বা, পরু এবং চ্যাপ্টা অংশ নির্গত হয়েছে।

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. A Pictorial Guide Butterflies of Gorumara National Park (2013 সংস্করণ)। Department of Forests Government of West Bengal। পৃষ্ঠা 192। 
  2. Kunte, Krushnamegh (২০১৩)। Butterflies of The Garo Hills। Dehradun: Samrakshan Trust, Titli Trust and Indian Foundation of Butterflies। 
  3. [১]
  4. Bingham, C.T. 1905. Fauna of British India. Butterflies. Vol. 1
  5. Alagumurugan, C.; Pavaraj, M; Rajan, M.K.। "Seasonal and relative abundance of butterflies in a scrub jungle habitat of Peraiyur Taluk,Madurai District,Tamilnadu"। Journal of Research in Biology(2011)। পৃষ্ঠা 44-50। 
  6. Van Der Poorten, George Michael; Van Der Poorten, Nancy E. (২০১৬)। The Butterfly Fauna of Sri Lanka। পৃষ্ঠা 237। আইএসবিএন 978-1-77136-189-7 
  7. Jeevith, S.; Samydurai, P.। "Butterflies Nectar Food Plants From Glenmorgan,The Nilgiris,Tamil Nadu,India" (PDF)। International Journal of Plants,Animal and Environmental Science। পৃষ্ঠা 150-157। আইএসএসএন 2231-4490। সংগ্রহের তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  8. Malsinghe, D.; Senarath, N.। "The Butterfly Park of the National Zoological Garden, Dehiwala, Sri Lanka" (PDF)। Sri Lanka Wildlife Veterinarians’ Association। পৃষ্ঠা 12-13। সংগ্রহের তারিখ ২০ অক্টোবর ২০১৬ 
  9. Thakur, M.S.। "STUDY ON DIVERSITY AND HOST PLANTS OF BUTTERFLIES IN LOWER SHIWALIK HILLS, HIMACHAL PRADESH"International Journal of Plant, Animal and Environmental Sciences। পৃষ্ঠা 36। আইএসএসএন 2231-4490। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  10. Pratap Singh, Arun (২০১১)। Butterflies of India (1st সংস্করণ)। Utter Pradesh: Om Books International। পৃষ্ঠা 93। আইএসবিএন 978-93-80069-60-9 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

http://www.ifoundbutterflies.org/sp/651/Vindula-erota