টপস্‌ ইন সায়েন্স ফিকশন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(টপস ইন সাইন্স ফিকশন থেকে পুনর্নির্দেশিত)
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
দ্বিতীয় সংখ্যা, প্রচ্ছদ শিল্পি ক্যালি ফ্রেয়াস

টপস ইন সায়েন্স ফিকশন ছিল ১৯৫৩ সালে প্রকাশিত একটি কল্পবিজ্ঞান পত্রিকা। এ ম্যাগাজিনের প্রকাশনা সংস্থা ছিল লাভ রোমান্স পাবলিশিং, যারা এটাতে প্লানেট স্টোরিস ম্যাগাজিনে প্রকাশিত গল্পগুলোর পুনঃমুদ্রণ করত। এটি ছিল ব্যবসায়িক ভাবে অসফল এবং এর মাত্র দুটি সংখ্যা প্রকাশিত হয়েছিল। যদিও এতে কোন মৌলিক লেখা প্রকাশিত হত না, তবে ক্যালি ফেয়াসের প্রথম দিকের কিছু মৌলিক আর্টওয়ার্ক এরে প্রকাশ হয়েছিল। এর একটি ব্রিটিশ পুনঃমুদ্রিত সংস্করণ ১৯৫০ সালের মধ্যভাগে প্রকাশিত হয়।

প্রকাশনার ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৫০-এর দশকে যুক্তরাষ্ট্রে কল্পবিজ্ঞান সাহিত্যের প্রকাশনা জগতে নাটকীয় পরিবর্তন হয়। ১৯৪৯-এর শুরুতে, একটি প্রধান পত্রিকা বাদে প্রায় সকল পত্রিকাই পাল্প ফরম্যাটে রুপান্তরিত হয়েছিল; ১৯৫৫ সালের শেষ দিকে, এদের বেশির ভাগের প্রকাশনা বন্ধ হয়ে যায় অথবা ডাইজেস্ট ফরম্যাটে পরিবর্তিত হয়। [১] পাল্প মার্কেটের এই হঠাৎ পতনের সময়ও কিছু পাল্প কল্প বিজ্ঞান পত্রিকা এই সময় প্রকাশিত হতে থাকে। টপস ইন সাইন্স ফিকশন ছিল তাদের মধ্যে সর্বশেষ।[২] প্রকাশক, লাভ রোমান্স পাবলিশিং, যারা প্লানেট স্টোরিস ও প্রকাশ করত, এবং ম্যালকম রেইস, প্লানেট-এর সম্পাদনা পরিচালক, প্ল্যানেট এর ১৪ বছরের প্রকাশনা থেকে পুরোনো গল্প এবং শিল্পকর্মের সদ্ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নেন।[৩] তিনি সম্ভবত স্ট্যান্ডার্ড ম্যাগাজিন প্রকাশিত ফ্যান্টাস্টিক স্টোরি ম্যাগাজিন দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন যারা পুরোনো কল্পবিজ্ঞান কাহিনির পুনঃপ্রকাশ করত। যদি তাই হয়, তিনি সম্ভবত খেয়াল করেননি ১৯৫৩ সাল থেকে ফ্যান্টাস্টিক স্টোরি ব্যবসায়িক ভাবে মন্দা যাচ্ছিল।[৩][৪]

প্রথম সংখ্যাটি প্রকাশিত হয় ১৯৫৩ সালের বসন্তে এবং তা সম্পাদনা করেছিলেন জ্যাক অ'সুলিভান। প্রচ্ছদটি ছিল ১৯৪২ সালে আলেকজান্ডার লেইডেনফ্রস্ট এর করা প্লানেট স্টোরির প্রচ্ছদের পুনঃর্মুদ্রণ। কাহিনির মধ্যে ছিল আইজাক আসিমভের "ব্ল্যাক ফ্রেয়ার অব দ্য ফ্লেম" এবং রে ব্রডবেরির "দ্য মিলিয়ন ইয়ার পিকনিক" - যা তার "মারসিয়ান ক্রনিকলস" সিরিজের প্রথম গল্প। অঙ্গসজ্জায় ছিল ক্যালি ফ্রেয়াস এর প্রথম দিকের কিছু মৌলিক আর্টওয়ার্ক।[৫] সংখ্যাটির সাফল্য ছিল মধ্যম, পত্রিকার পরিবেশকরা রেইস কে পত্রিকাটির পরিবেশনায় সমস্যা হচ্ছিল বলে অভিযোগ করছিলেন, রেইস তাই দ্বিতীয় সংখ্যা ডাইজেস্ট ফরম্যাটে প্রকাশ করেন: ডাইজেস্ট গুলো পাল্পের তুলনায় জনপ্রিয় ছিল, দু এক বছরের মধ্যেই সমগ্র্ বাজার দখল করে ফেলেছিল।[২][৩] দ্বিতীয় সংখ্যার তারিখ ছিল ফল ১৯৫৩; প্রচ্ছদ করেছিলেন ফ্রেয়াস, রে ব্রডবেরি এবং লিগ ব্রাকেট এর "লরেল অব দ্য রেড মিস্ট" অবলম্বনে। ফ্রেয়াস গল্পটির ভেতরের ছবিও এঁকেছিলেন, পরে মন্তব্য করেছিলেন যে তিনি ফলাফল দেখে খুবই সন্তষ্ট, "এটি আবার নতুন করে আঁকা অসম্ভব, কারণ এটি ছিল যাদুর মত"।[৫] দ্বিতীয় সংখ্যার ভেতরের ছবি আঁকার জন্য এমস যোগ দেন; কাহিনির মধ্যে ছিল ফ্রেড্ররিখ ব্রাউন এবং হোরেস গোল্ডের লেখা গল্প।[৫] যাইহোক, এই সংখ্যাটি শুধুমাত্র সীমিত সংখ্যক পরিবেশক পেয়েছিল এবং রেইস পত্রিকাটি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেন।

গ্রন্থপঞ্জির বিবরণ[সম্পাদনা]

টপস ইন সাইন্স ফিকশন এর দুটি সংখ্যার তারিখ ছিল স্প্রিং ও ফল ১৯৫৩; প্রথমটি ছিল পাল্প ধরণের এবং দ্বিতীয়টি ডাইজেস্ট ধরণের। দুটি সংখ্যারই একটি একক ভলিউম বের হয়ে ছিল। প্রকাশক, লাভ রোমান্স পাবলিশিং, কানেক্টিকাট, স্ট্যামফোর্ড। পাল্প ধরণের এ ম্যাগাজিনের প্রতিটির মূল্য ছিল ২৫ সেন্ট এবং ডাইজেষ্ট ইস্যুর জন্য ৩৫ সেন্ট, দুটি ইস্যুই ছিল ১২৮ পাতার। প্রথম সংখ্যার সম্পাদনা করেছিলেন জ্যাক সুলিভান; দ্বিতীয় সংখ্যাটি ম্যালকম রেইস।[৫]

একটি ব্রিটিশ পুনঃমুদ্রিত সংস্করণ টপ ফিকশন লিমিটেড কর্তৃক প্রকাশিত হয় যা ছিল তিনটি ১২৮ পৃষ্ঠার ডাইজেস্ট সংস্করণ। এগুলো প্রকাশিত হয়েছিল যথাক্রমে শরৎ ১৯৫৪, শীত ১৯৫৫ এবং গ্রীষ্ম ১৯৫৬ সালে, কোনটিতেই তারিখের উল্লেখ ছিল না। প্রথম দুটি ছিল মার্কিন স্ংখ্যা দুটির রিপ্রিন্ট; তৃতীয়টি ছিল মার্কিন দ্বিতীয় স্ংখ্যাটির কিছু পুনঃমুদ্রণ। তাদের প্রতিটির মূল্য ছিল ১/৬[৫]

পাদটিকা[সম্পাদনা]

  1.  (১৯৭৬), পৃষ্ঠা . ১০৬.
  2. অ্যাসলে (২০০০), পৃষ্ঠা. ২২০-২২৪.
  3. অ্যাসলে (২০০৫), পৃষ্ঠা. ৪৫.
  4. অ্যাসলে (১৯৮৫), পৃষ্ঠা. ২৪৯-২৫০.
  5. চেসিবার (১৯৮৫), পৃষ্ঠা. ৬৭৫-৬৭৭.

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Ashley, Michael (1976). The History of the Science Fiction Magazine Vol. 3 1946–1955. Chicago: Contemporary Books, Inc. ISBN 0-8092-7842-1. 
  • Ashley, Mike (1985). "Fantastic Story Quarterly". In Tymn, Marshall B.; Ashley, Mike. Science Fiction, Fantasy, and Weird Fiction Magazines. Westport CT: Greenwood Press. pp. 249–250. ISBN 0-313-21221-X. 
  • Ashley, Mike (2000). The Time Machines:The Story of the Science-Fiction Pulp Magazines from the beginning to 1950. Liverpool: Liverpool University Press. ISBN 0-85323-865-0. 
  • Ashley, Mike (2005). Transformations:The Story of the Science-Fiction Magazines from 1950 to 1970. Liverpool: Liverpool University Press. ISBN 0-85323-779-4. 
  • Casebeer, E.F. (1985). "Tops in Science Fiction". In Tymn, Marshall B.; Ashley, Mike. Science Fiction, Fantasy, and Weird Fiction Magazines. Westport CT: Greenwood Press. pp. 675–677. ISBN 0-313-21221-X.