তরাই

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মানচিত্রে বেগুনী রঙে অঙ্কিত অংশটি তরাই অঞ্চল
হাতির সাথে দণ্ডায়মান অ্যাডওয়ার্ড, প্রিন্স অব ওয়েলস; ১৮৭৫/৭৬-এ তোলা ছবি

তরাই (নেপালি: तराई, tarāī) হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত জলাভূমি, তৃণভূমি, সাভানা ও অরণ্যময় বলয় অঞ্চল। এটি হিমালয় পর্বতমালার দক্ষিণে এবং গাঙ্গেয় সমভূমির উত্তরে অবস্থিত। অঞ্চলটি পশ্চিমে যমুনা নদী ধরে ভারতের হিমাচল প্রদেশ, হরিয়ানা, উত্তরাখণ্ড থেকে পূর্বে উত্তরপ্রদেশবিহার পর্যন্ত বিস্তৃত। পূর্বাঞ্চলে ব্রহ্মপুত্র নদীর অববাহিকায় পশ্চিমবঙ্গ, বাংলাদেশ, ভুটানআসামে এ অঞ্চলটির কিয়দংশ ডুয়ার্স নামে পরিচিত।[১]

আকাশ থেকে তরাইয়ের সমভূমি, বিরাটনগর, নেপাল

ভূ-প্রকৃতি[সম্পাদনা]

তরাই অঞ্চলের উত্তরে অবস্থিত হিমালয়ের পাথর, নুড়ি আর ক্ষয়প্রাপ্ত মাটিতে তৈরি বনময় ভাবর অঞ্চল। তরাই অঞ্চলের মাটিতে কাদা ও বালির পর্যায়ক্রমিক স্তর দেখা যায়। এখানকার ভৌমজলপৃষ্ঠ (ওয়াটার টেবিল) উচ্চ হওয়ায় অনেক ঝোরা ও জলভূমি দেখা যায়। তরাই অঞ্চলের নদীগুলিতে বর্ষাকালে দুকূল ছাপিয়ে বন্যা হয়। তরাই-ডুয়ার্স সাভানা ও তৃণভূমি একটি বাস্তু-অঞ্চল (ইকোরিজিয়ন)। এই অঞ্চলটি গোটা তরাই অঞ্চলের মধ্যভাগ জুড়ে অবস্থিত। এইখানে লম্বা লম্বা ঘাসের তৃণভূমি, সাভানা এবং চিরহরিৎ ও পর্ণমোচী বনভূমি দেখা যায়। এখানকার ভূমির ঢাল উত্তর থেকে দক্ষিণ দিকে, এবং এই ঢালও বেশি নয়। ভূমিভাগের সাধারণ উচ্চতা ৮০-১০০ মিটার। তিস্তা, তোর্সা, রায়ডাক, জলঢাকা, সঙ্কোশ প্রভৃতি বড় এবং একাধিক ছোট নদীর বয়ে আনা বালি, নুড়ি ও পাথরে গড়ে উঠেছে তরাই।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Johnsingh A.J.T., Ramesh K., Qureshi Q., David A., Goyal S.P., Rawat G.S., Rajapandian K., Prasad S. 2004. Conservation status of tiger and associated species in the Terai Arc Landscape, India. RR-04/001, Wildlife Institute of India, Dehradun

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]