বাংলাদেশে হিন্দুধর্ম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
বাংলাদেশে টেরাকোটার মন্দির স্থাপত্যের অনুপম নিদর্শন কান্তজীউ মন্দির

হিন্দুধর্ম হলো গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের দ্বিতীয় প্রচলিত ধর্ম। বাংলাদেশ শিক্ষা তথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরোর হিসাব অনুযায়ী বর্তমানে বাংলাদেশের জনসংখ্যার ১২.২ শতাংশ হিন্দু[১] ভারতনেপালের পর বাংলাদেশ তৃতীয় বৃহত্তম হিন্দু-অধ্যুষিত রাষ্ট্র। এ দেশের প্রধান ধর্ম ইসলাম হলেও, এদেশে অনেক হিন্দু ধর্মালম্বী জনগণ রয়েছে।

বাংলাদেশে হিন্দুধর্ম প্রথা ও আচার-অনুষ্ঠান প্রকৃতিগতভাবে প্রতিবেশী ভারতীয় রাজ্য পশ্চিমবঙ্গের হিন্দুধর্মের মতো। উল্লেখ্য, ১৯৪৭ সালে ভারত বিভাগের পূর্বে বর্তমান বাংলাদেশ ভূখণ্ড (তৎকালীন নাম পূর্ববঙ্গ) ও পশ্চিমবঙ্গ সংযুক্ত অঞ্চল ছিল।

বাংলাদেশী হিন্দুসমাজে দেবী দুর্গাকালীর পূজা বহুল প্রচলিত। এছাড়া লক্ষ্মী পূজা, সরস্বতী পূজা, কাত্যায়নী পূজা, বাসন্তী পূজা, শিবপূজা প্রভৃতি ধর্মানুষ্ঠানেরও প্রচলন রয়েছে। হিন্দু বৈষ্ণবধর্মইসলামি সুফি মতবাদ বাংলাদেশে পরস্পরের সঙ্গে ভাবের আদানপ্রদান ঘটিয়েছে। বাংলাদেশে এমন কয়েকজন মহাত্মা ও ধর্মগুরু জন্মেছেন, হিন্দুধর্মের সংস্কার ও প্রসারের ক্ষেত্রে যাঁদের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। এঁদের মধ্য ঠাকুর অনুকূলচন্দ্র, স্বামী প্রণবানন্দ, হরিচাঁদ ঠাকুর, জগদ্বন্ধু সুন্দর, মা আনন্দময়ী, রাম ঠাকুর, লোকনাথ ব্রহ্মচারী, বালক ব্রহ্মচারী, শ্রী চিন্ময় প্রমুখ অন্যতম।

প্রশাসনিক বিভাগ দ্বারা হিন্দু জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

হিন্দু জনসংখ্যার শতকরা হার (%)

হিন্দু মন্দির[সম্পাদনা]

বিশিষ্ট বাংলাদেশী হিন্দু[সম্পাদনা]

রাজনীতিবিদ[সম্পাদনা]

  • সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত (সাংসদ,আওয়ামী লীগ)
  • নারায়ন চন্দ্র চন্দ (সাংসদ ও মন্ত্রী, আওয়ামী লীগ)
  • হরনাথ বাইন (প্রয়াত) (প্রাক্তন সাংসদ;আওয়ামীলীগ)
  • সুধাংশু শেখর হালদার (প্রয়াত) (আওয়ামী লীগ)
  • সতীশ চন্দ্র রায় (প্রাক্তন সাংসদ, আওয়ামী লীগ)
  • গোপাল কৃষ্ণ মহারত্ন (প্রাক্তন সাংসদ, আওয়ামী লীগ)
  • পঞ্চানন বিশ্বাস (প্রাক্তন সাংসদ, আওয়ামী লীগ)
  • গয়েশ্বর চন্দ্র রায় (বিএনপি)
  • গৌতম চক্রবর্তী (বিএনপি)
  • গৌতম কুমার মিত্র (বিএনপি)
  • নিতাই রায় (বিএনপি, পূর্বে জাতীয় পার্টি)
  • বিপ্লব পোদ্দার (বিএনপি)
  • গৌরব কুমার কুন্ডু (বিএনপি)
  • মনোরঞ্জন শীল গোপাল (জাতীয় পার্টি)
  • বিমল বিশ্বাস (ওয়ার্কার্স পার্টি)
  • পঙ্কজ নাথ (আওয়ামী লীগ)
  • সুজিত রায়নন্দী (আওয়ামী লীগ)
  • ননী গোপাল মণ্ডল (সাংসদ , আওয়ামী লীগ)
  • বীরেন শিকদার (সাংসদ , আওয়ামী লীগ)
  • মুকুল বসু (আওয়ামী লীগ, প্রাক্তন সচিব)
  • অসীম কুমার উকিল (আওয়ামী লীগ)
  • নেপাল কৃষ্ণ দাস (বিকল্প ধারা, পূর্বে হিন্দু লীগ)
  • রঞ্জিত কুমার ঘোষ (সাংসদ , আওয়ামী লীগ)
  • ধীরেন্দ্র নাথ সাহা (বিএনপি, পূর্বে আওয়ামী লীগ)
  • শ্রী নারায়ণ চন্দ্র সাহা মনি (আওয়ামী লীগ)

সামরিক বাহিনী[সম্পাদনা]

লেফটানেন্ট কর্নেল ও তদুর্ধ্ব

খেলাধূলা[সম্পাদনা]

কলা[সম্পাদনা]

চারুকলা ও সাহিত্য[সম্পাদনা]

বিদ্বজ্জন[সম্পাদনা]

  • রণদা প্রসাদ সাহা (মানবতাবাদী)
  • বিনোদবিহারী চৌধুরী (বিপ্লবী)
  • জ্ঞানতাপস যোগেশচন্দ্র সিংহ (শিক্ষাবিদ)
  • জ্ঞানভাস্কর বিভূতিভূষণ ভট্টাচার্য (শিক্ষাবিদ)
  • জাস্টিস দেবেশ চন্দ্র ভট্টাচার্য
  • অধ্যাপক অরুণ কুমার বসাক (গবেষক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়)
  • অধ্যাপক সনত্ কুমার সাহা (গবেষক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়)
  • অধ্যাপক দুর্গাদাস ভট্টাচার্য (গবেষক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়)
  • ডঃ দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য(অর্থনীতিবিদ)
  • অধ্যাপক (ডাঃ)প্রাণগোপাল দত্ত (গবেষক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য)
  • অধ্যাপক নিমচন্দ্র ভৌমিক (গবেষক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়)
  • অধ্যাপক অজয় রায় (গবেষক)
  • অধ্যাপক বিশ্বজিত্ চন্দ (আইনবিদ, গবেষক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়)
  • অরোমা দত্ত (মানবাধিকার কর্মী)
  • সুবিনয় নন্দী (অর্থনীতিবিদ, রাষ্ট্রসংঘ)
  • স্বপন কুমার বালা (গবেষক)
  • অশোক কে. কর্মকার (প্রাক্তন জজ ও ইউএস অ্যাটর্নি)
  • ড. অরুণ কুমার গোস্বামী (গবেষক)
  • অমৃতলাল দে
  • মনোরঞ্জন শীল (শিক্ষাবিদ)
  • বিচারপতি এস কে সিনহা
  • বিচারপতি ভবানীপ্রসাদ সিনহা

পাকিস্তান আমলে শহীদ বুদ্ধিজীবী[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. [১] BANBEIS - Bangladesh Bureau of Educational Information & Statistics

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

একটি ক্রমের অংশ
দেশ অনুসারে হিন্দুধর্ম

Winkel-tripel-projection.jpg