ভানুবিল কৃষক প্রজা আন্দোলন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
চিত্র:Bhanubil.jpg
জমিদারর হাতির তান্ডব। ষ্কেচ: সজলকুমার সিংহ

দুশো বছরের ব্রিটিশ অপশাসন। দেশ দমন নিপীড়নের দীর্ঘ ইতিহাস। এর থেকে মুক্তির ইতিহাস হল ভানুবিল কৃষক প্রজা আন্দোলন। ১৯২৯-৩০ সালের দিকে ধনবাদী, সাম্রাজ্যবাদী পৃথিবীতে যে অর্থনৈতিক সংকট দেখা দিয়েছিল,ভারতে কংগ্রেসের অহিংস সত্যাগ্রহ আন্দোলনের কারণে রাজনীতিতে যে অস্থিরতা এসেছিল তারই ফল হচ্ছে ভানুবিল কৃষক প্রজা আন্দোলন।

১৯৩২ সালের অগ্রহায়ণ মাসে আড়াই হাজার সৈন্য এবং ১০টি হাতি নিয়ে ভানুবিলে মানুষ মারার তান্ডবলীলায় নেমেছিল তৎকালীন সাম্রাজ্যবাদের দালালেরা। এতে তছনছ হয়ে যায় ভানুবিল। জমিদারের বিরুদ্ধে ক্ষেপে উঠে বিদ্রোহীরা।

ভানুবিল কৃষক প্রজা আন্দোলনের রেশ পুরো উপমহাদেশ ছেড়ে ইউরোপেও প্রভাব ফেলেছিল। এর পরে এসেছিল আরেক রাজনৈতিক চেতনা - সামন্ত সমাজ ভেঙ্গে পুজিঁবাদী সমাজ গড়ে উঠে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের প্রাক্ষালে পাস করা হয় সিলেট প্রজাস্বত্ত্ব আইন। এতে ক্ষেপে উঠে বিদ্রোহীরা।

১৭৮৯ সালের ফরাসী বিপ্লবের ভেতর দিয়ে পুজিঁবাদি সমাজের যে করাল গ্রাস নেমেছিল পৃথিবীতে তার প্রভাব পড়ে মণিপুরী সমাজেও। সাম্য, মৈত্রী এবং স্বাধীনতার আদর্শে জ্বলে উঠে প্রজা, শ্রমিক মালিক। পৃথিবীতে শাসনের রুপরেখা পাল্টে যায়। সভ্যতার ইতিহাসে আসে আচানক এক পরিবর্তন।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ভানুবিল কৃষকপ্রজা আন্দোলন কমলগঞ্জের সর্বত্র নামকরা পুরনো একটি ঐতিহাসিক ঘটনা। বাংলা ১৩০৭ বঙ্গাব্দে এটি ঘটে। যা বাংলাদেশর কমলগঞ্জ থানার ভানুবিল গ্রামের বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরী প্রজাদের ব্রিটিশ এবং তাদের জমিদারদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের এক অবিস্মরণীয় ইতিহাস।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • মৌলভীবাজার জেলার জনজীবন/ অধ্যক্ষ রসময় মোহান্ত, ১৯৮৬, পৃষ্ঠা ৮৭
  • আরণ্য জনপদে/ আবদুস সাত্তার, পৃষ্ঠা ২৯৭
  • মণিপুরী জাতিসত্তা বিতর্ক: একটি নিরপেক্ষ পাঠ / অসীম কুমার সিংহ, ২০০১ সিলেট,
  • রিপোর্ট: জাতীয় আদিবাসী গোলটেবিল বৈঠক / ডিসেম্বর ১৮-২০,১৯৯৭ ঢাকা, পৃষ্ঠা ৩২
  • পুর্ব্ববঙ্গ ও আসাম/ শ্রী কৃষ্ণমোহন ধর, ১৯০৯ , পৃষ্ঠা ১০৬-১০৭
  • নানকার বিদ্রোহ / অজয় ভট্টাচার্য ,১৯৭৭
  • ভানুবিল কৃষক প্রজা আন্দোলন বারোহ বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরী সমাজ / অধ্যাপক রণজিত সিংহ, ১৯৮৫